Last Update

Thursday, October 29, 2015

নুড়ি ধুলে সোনা মেলে!

ইউরোপের সবচেয়ে দরিদ্র দেশ বুলগেরিয়া। তবে এবার বড় লোক হওয়ার আশায় নদীর তীরে দল বেঁধে নেমেছেন দেশটির অধিবাসীরা। সেখানে নুড়ি কুড়িয়ে পানিতে ধুলে সোনা পাওয়া যায়। শত শত নারী-পুরুষ নেমে পড়েছেন সোনার খোঁজে। কাপড় গুটিয়ে হাঁটু পানিতে নেমে পড়েছেন কেউ। কেউ উপকূলের নুড়ি নাড়াচাড়া করছেন। কাদা-শ্যাওলা জমা নুড়ি পাথর কুড়িয়ে পানিতে ধুয়ে ছেঁকে ছেঁকে দেখছেন স্বর্ণ আছে কিনা। বুধবার বার্তা সংস্থা এএফপির খবরে বলা হয়, অনেক আগে থ্রাসিয়ান সভ্যতার শাসকদের রাজত্ব ছিল এ অঞ্চল। তাদের রাজধানী ছিল এ নদী তীর।
সেখানে অনেক স্বর্ণ-গহনা জমা রাখা হতো। সেই সভ্যতা বিলুপ্তির পর এখানকার পাথর-মাটির সঙ্গে মিশে গেছে সোনা। কালের বিবর্তনে ২ হাজার বছর পরও নুড়ি কুড়িয়ে স্বর্ণের দেখা মেলে। বর্তমানে এ নদী তীরের প্রায় দেড় হাজার মানুষ সোনা কুড়ানোই তাদের পেশা হিসেবে নিয়েছে। সোনা কুড়ানিদের একটি সংগঠনও রয়েছে। সংগঠনটির প্রধান কিরিল স্টামেনভ বলেন, এখানে সবসময় সোনা ছিল। থ্রাসিয়ান সভ্যতার শৈশব গড়েছে এখানে। এখন স্বর্ণের চিকচিক দৃশ্য অনেক মানুষকে এ পেশায় টেনে এনেছে। দু’বছর ধরে সপ্তাহে একবার স্বামীর সঙ্গে এখানে সোনা কুড়াতে আসেন গানিভা। তিনি বলেন, আমরা ৮ গ্রাম সোনা পেয়েছি। ২০ গ্রাম হয়ে গেলে আমাদের নাতিদের কাজে দেবে। গত আগস্টে প্রকাশিত বুলগেরিয়া সরকারের প্রকাশিত একটি রিপোর্টে বলা হয়, ‘দেশটির সব নদীই স্বর্ণবহমান।’

Post a Comment

 
Back To Top