Last Update

Thursday, October 22, 2015

বৃত্তি নিয়ে কাতারে যাবে ‘ঘড়ি বালক’

আহমেদ মোহাম্মদ
‘ঘড়ি বালক’ হিসেবে পরিচিতি পাওয়া যুক্তরাষ্ট্রের ১৪ বছরের কিশোর আহমেদ মোহাম্মদ বৃত্তি নিয়ে সপরিবারে মধ্যপ্রাচ্যের কাতারে যাওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। সেখানে সে উচ্চতর পড়াশোনা করবে। খবর বিবিসির। আহমেদ মোহাম্মদকে কাতার ফাউন্ডেশন ফর এডুকেশন, সায়েন্স অ্যান্ড কমিউনিটি ডেভেলপমেন্ট একটি পূর্ণাঙ্গ বৃত্তি দিচ্ছে। এটি শিক্ষা, গবেষণাসহ বিভিন্ন ক্ষেত্রে সহায়তা করা একটি বেসরকারি প্রতিষ্ঠান। যুক্তরাষ্ট্রের টেক্সাসের স্কুলছাত্র সুদানি বংশোদ্ভূত আহমেদের তৈরি করা একটি ঘড়ি নিয়ে সম্প্রতি তুলকালাম হয়ে যায়। স্কুলের শিক্ষকেরা তার ঘড়িটি দেখে বোমা বলে সন্দেহ করেন। পরে পুলিশ এসে কড়া পাহারায় তাকে থানায় নিয়ে যায়। কয়েক দিন পর ডালাসের পুলিশ সংবাদ সম্মেলন করে জানায়, আহমেদ নির্দোষ। তদন্ত করে তার বিরুদ্ধে কিছুই পাওয়া যায়নি। আহমেদের নির্দোষ প্রমাণিত হওয়ার খবরটি ছড়িয়ে পড়ায় দেশজুড়ে ওঠে সমালোচনার ঝড়।
অনেকে অভিযোগ করেন—মুসলিম বলেই এমন আচরণের শিকার হতে হয়েছে আহমেদকে। কাতার ফাউন্ডেশনের এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, মাধ্যমিক ও স্নাতক পর্যায়ের শিক্ষার জন্য আহমেদকে পূর্ণ বৃত্তি দেওয়া হচ্ছে। ওই বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, আহমেদের পরিবার বলেছে, ‘আহমেদের গ্রেপ্তারের মতো অপ্রত্যাশিত ঘটনার পর থেকে সহায়তার অনেক প্রস্তাব পেয়ে আমরা অভিভূত।’ যুক্তরাষ্ট্রে আহমেদ নির্দোষ ঘোষিত হওয়ার পর এ নিয়ে সরগরম হয়ে ওঠে সামাজিক যোগাযোগের ওয়েবসাইট ফেসবুক ও টুইটার। পরে মার্কিন প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা স্বয়ং টুইটার বার্তায় আহমেদের তৈরি ঘড়ির প্রশংসা করে তাকে হোয়াইট হাউসে যাওয়ার আমন্ত্রণ জানান। গত সোমবার আহমেদ হোয়াইট হাউসে বারাক ওবামার সঙ্গে সাক্ষাৎ করে। ফেসবুকের প্রধান নির্বাহী মার্ক জাকারবার্গসহ অনেক খ্যাতনামা ব্যক্তিত্ব তার সঙ্গে যোগাযোগ করে সমর্থন জানিয়েছেন।

Post a Comment

 
Back To Top