Last Update

Thursday, October 29, 2015

পাকিস্তানই জঙ্গিদের প্রশিক্ষণ দিয়েছে : মোশাররফ

পাকিস্তান সন্ত্রাসীদের লালন করে এবং তাদের প্রশিক্ষণ দেয়। ১৯৯০-এর দশকে লস্কর-ই-তইয়েবার মতো সন্ত্রাসী সংগঠনকে মদদ দিয়ে তৈরি করে পাকিস্তান। যে কারণে লস্কর নেতা হাফিজ সাইদ ও জাকিউর রহমান লাকভির মতো সন্ত্রাসীরা মাথাচাড়া দিয়ে ওঠার সুযোগ পায়। রোববার পাকিস্তানের নিউজ চ্যানেল দুনিয়া নিউজকে দেয়া এক সাক্ষাৎকারে এ কথা বলেন দেশটির সাবেক স্বৈরশাসক পারভেজ মোশাররফ। বুধবার এ খবর প্রকাশ করেছে পিটিআই। পারভেজ মোশাররফ বলেন, ‘১৯৯০-এর দশকে কাশ্মীরে স্বাধীনতা আন্দোলন শুরু হয় ... ওই সময় লস্কর-ই তইয়েবার মতো ১১ থেকে ১২টি সংগঠন সৃষ্টি হয়। আমরা তাদের সমর্থন করেছি এবং প্রশিক্ষণ দিয়েছি, কেননা তারা জীবন বাজি রেখে কাশ্মীরে যুদ্ধ করেছে।’
২০০৮ সালে ভারতের মুম্বাইয়ে সন্ত্রাসী হামলার মূল হোতা হাফিজ সাইদ ও লাকভির বিষয়ে প্রশ্ন করা হলে পারভেজ মোশাররফ এসব কথা বলেন। ভারতের মোস্ট ওয়ানটেড সন্ত্রাসীর তালিকায় হাফিজ সাইদের নাম রয়েছে। কিন্তু পাকিস্তানে স্বাধীনভাবে ঘুরে বেড়াচ্ছেন তিনি। ২০০৮ সালের ২৬ নভেম্বর মুম্বাইয়ে হামলার অভিযোগে লাকভি এবং আরও ছয়জনের বিরুদ্ধে বিচার প্রক্রিয়াধীন রয়েছে। ওই হামলায় ১৬৬ জন নিহত হন। এদিকে চলতি বছরের শুরুর দিকে পাকিস্তানের একটি আদালত লাকভিকে জামিন দেন। এ নিয়ে তীব্র ক্ষোভ প্রকাশ করে ভারত। লাকভির মতো শীর্ষ সন্ত্রাসীকে জামিন দেয়ায় পাকিস্তানের সঙ্গে কূটনৈতিক উত্তেজনা বেড়ে যায় ভারতের। পারভেজ মোশাররফ আরও বলেন, কাশ্মীরের স্বাধীনতা আন্দোলনে নেমে হিরো বনে যান হাফিজ ও লাকভি। কিন্তু ধর্মভিত্তিক আন্দোলন থেকে সরে তারা এখন সন্ত্রাসী গোষ্ঠীতে পরিণত হয়েছে। তারা এখন নিজেদের লোককেই মারছে। এনডিটিভি ও টাইমস অব ইন্ডিয়া অনলাইন।
‘তালেবানের ওপর পাকিস্তানের প্রভাব আছে নিয়ন্ত্রণ নেই’
তালেবানের ওপর পাকিস্তানের ‘কিছু প্রভাব’ থাকলেও এ জঙ্গি সংগঠনটির ওপর ইসলামাবাদের কোনো নিয়ন্ত্রণ নেই। বুধবার পাকিস্তানের জনপ্রিয় দৈনিক ডন নিউজকে দেয়া এক সাক্ষাৎকারে একথা বলেন দেশটির পররাষ্ট্রবিষয়ক উপদেষ্টা সারতাজ আজিজ। ‘পাকিস্তান জঙ্গিদের সমর্থন ও প্রশিক্ষণ দেয়’- পারভেজ মোশাররফের এমন সাক্ষাৎকারের পরপরই তালেবান দৌরাত্ম্যে পাক সরকারের সংশ্লিষ্টতার কথা স্বীকার করে নিলেন আজিজ। তিনি আরও বলেন, আফগান সরকার তালেবানের সঙ্গে আলোচনায় বসবে কিনা, তা সম্পূর্ণ নির্ভর করছে কাবুলের ওপর। পাকিস্তান শুধু এ ধরনের আলোচনার আয়োজন করে দিতে পারে। কিন্তু এখন পর্যন্ত আফগান সরকার এ ব্যাপারে ইসলামাবাদকে কোনো অনুরোধ জানায়নি।

Post a Comment

 
Back To Top