Last Update

Tuesday, October 20, 2015

মিসরে পার্লামেন্ট নির্বাচন শুরু

গিজার আল-আয়াত এলাকার একটি কেন্দ্রে গতকাল
লাইনে দাঁড়ানো কয়েকজন প্রবীণ ভোটার। এএফপি
মিসরে বহুল প্রতীক্ষিত পার্লামেন্ট নির্বাচনের প্রথম দফার ভোট গ্রহণ গতকাল রোববার থেকে শুরু হয়েছে। পার্লামেন্টের নিম্নকক্ষ প্রতিনিধি পরিষদের ৫৯৬টি আসনের জন্য ভোট গ্রহণ করা হবে এ নির্বাচনে। খবর বিবিসি ও নিউইয়র্ক টাইমসের। মিসরে প্রথমবারের মতো অবাধ নির্বাচনে বিজয়ী ইসলামপন্থী প্রেসিডেন্ট মোহাম্মদ মুরসিকে ২০১৩ সালে সামরিক বাহিনী উৎখাত করার পর এই প্রথম দেশটিতে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হচ্ছে। মিসর সরকার বলছে, গণতন্ত্রে প্রত্যাবর্তনে এই নির্বাচনই শেষ ধাপ। তবে অনেকেরই অভিমত, এবারের নির্বাচনে যাঁরা প্রার্থী হয়েছেন, তাঁদের সবাই সাবেক সেনাপ্রধান ক্ষমতাসীন প্রেসিডেন্ট আবদুল ফাত্তাহ আল-সিসির সমর্থক। নতুন পার্লামেন্ট নির্বাচন তাই সিসির ক্ষমতার বলয় বাড়াতে সহায়তা করবে। সিসি সেনাপ্রধান থাকার সময়ই তাঁর নেতৃত্বেই মুরসিকে ক্ষমতাচ্যুত করা হয়।
মোহাম্মদ মুরসির দল মুসলিম ব্রাদারহুড গত পার্লামেন্ট নির্বাচনে প্রায় অর্ধেক আসন পায়। তবে দলটি এখন নিষিদ্ধ এবং এর অধিকাংশ নেতা এখন কারাগারে। তাঁদের অনেককে মৃত্যুদণ্ড দেওয়া হয়েছে। গতকাল প্রথম দফায় মিসরের ১৫টি প্রদেশে ভোট গ্রহণ করা হয়। আগামী ২২ ও ২৩ নভেম্বর অনুষ্ঠেয় দ্বিতীয় দফার ভোট অনুষ্ঠিত হবে ১৩টি প্রদেশে। নির্বাচনের ফলাফল ঘোষণা করা হবে ডিসেম্বর মাসের প্রথম সপ্তাহে। নির্বাচনের আগে গত শনিবার টেলিভিশনে প্রচারিত জাতির উদ্দেশে দেওয়া এক ভাষণে প্রেসিডেন্ট সিসি কেন্দ্রে এসে ভোট দেওয়ার জন্য দেশবাসীর প্রতি আহ্বান জানান। তিনি বলেন, ‘সারি ধরে ভোটকেন্দ্রে দাঁড়ান। নতুন মিসরের উজ্জ্বল ভবিষ্যতের জন্য আপনার ভোটাধিকার প্রয়োগ করুন।’ বিশ্লেষকদের ধারণা, প্রেসিডেন্টের আহ্বান সত্ত্বেও নির্বাচনে ভোট পড়বে কম। গণতান্ত্রিক প্রক্রিয়ার অগ্রগতি নিয়ে নাগরিকদের মধ্যে হতাশাই এর কারণ বলে মনে করছেন তাঁরা।

Post a Comment

 
Back To Top