Last Update

Friday, November 6, 2015

বায়ার্নে বিধ্বস্ত আর্সেনাল : নেইমার সুয়ারেজ যুগলে জয়ী বার্সা

দু’সপ্তাহ আগে এমিরেটসে মৌসুমের প্রথম হার কতটা তাতিয়ে দিয়েছিল বায়ার্ন মিউনিখকে, ফিরতি ম্যাচেই তা হাড়ে হাড়ে বুঝল আর্সেনাল। গানারদের ডেরায় ২-০ গোলে ভূপাতিত হওয়ার জ্বালা জুড়াতে ফিরতি ম্যাচের আগে সরাসরি হুমকিই দিয়েছিলেন আর্তুরো ভিদাল, ‘বুধবার বায়ার্নের আসল চেহারা দেখবে আর্সেনাল।’ নির্মম প্রতিশোধের হুমকিটা যে ফাঁকা বুলি ছিল না, পরশু ঘরের মাঠে আর্সেনালকে লণ্ডভণ্ড করেই তা বুঝিয়ে দিল বাভারিয়ানরা। অ্যালিয়াঞ্জ অ্যারেনায় গানারদের বায়ার্ন দর্শনের অভিজ্ঞতাটা হল ভয়ংকর! ৫-১ গোলে চূর্ণ হয়ে আর্সেনালের ইউরো স্বপ্ন কার্যত কোমায় চলে গেছে। পড়শিদের দুঃস্বপ্নের রাতে অগ্নিপরীক্ষায় উতরে গেছে লন্ডনের আরেক ক্লাব চেলসি। স্ট্যামফোর্ড ব্রিজে বাঁচা-মরার ম্যাচে ডায়নামো কিয়েভকে ২-১ গোলে হারিয়ে গ্র“পের দ্বিতীয় স্থানে উঠে এসেছে ব্লুজরা। ভুলতে বসা জয়ের অমৃত স্বাদে হাসি ফিরেছে কোচ হোসে মরিনহোর মুখে। ওদিকে ন্যুক্যাম্পে নেইমার-সুয়ারেজের অনবদ্য যুগলবন্দিতে আরেকটি দাপুটে জয় পেয়েছে বার্সেলোনা। নেইমারের দুই গোলের সঙ্গে সুয়ারেজের এক গোল মিলিয়ে বাতে বরিসভের বিপক্ষে ৩-০ ব্যবধানে জিতেছে বর্তমান চ্যাম্পিয়নরা। এই জয়ে চ্যাম্পিয়ন্স লীগের শেষ ষোলো প্রায় নিশ্চিত হয়ে গেছে বার্সার। একইদিনে লিঁওকে ২-০ গোলে হারিয়ে তৃতীয় দল হিসেবে শেষ ষোলোর টিকিট কেটেছে জেনিত সেন্ট পিটার্সবার্গ। এমিরেটসে দুর্দান্ত জয়ের পাশাপাশি গত দু’মৌসুমে বায়ার্নের মাঠে না হারার রেকর্ডও ছিল আর্সেনালের প্রেরণা। কিন্তু কোনো প্রেরণাই কাজে আসেনি। ম্যাচের শুরু থেকেই আহত বাঘের মতো গানারদের ওপর ঝাঁপিয়ে পড়ে বাভারিয়ানদের ১০ মিনিটে গোল উৎসবের সূচনা করেন রবার্ট লেওয়ানডোস্কি। ২৯ মিনিটে টমাস মুলার ও ৪৪ মিনিটে ডেভিড আলাবার আরও দুই গোলে ৩-০তে এগিয়ে থেকে বিরতিতে যায় বায়ার্ন। দ্বিতীয়ার্ধেও স্বাগতিকদের একচ্ছত্র আধিপত্যের ছবিটা বদলায়নি। ৫৫ মিনিটে বদলি হিসেবে নেমেই ব্যবধান ৪-০ করে ফেলেন আর্জেন রবেন। ৬৯ মিনিটে ব্যবধান কমিয়েছিলেন আর্সেনালের অলিভার গিরদ। কিন্তু তাতে লাভ হয়নি। ৮৯ মিনিটে মুলারের ব্যক্তিগত গোলে চ্যাম্পিয়ন্স লীগে নিজেদের সবচেয়ে বড় হারের লজ্জার রেকর্ড নিয়েই মাঠ ছাড়তে হয় আর্সেনালকে।
চার ম্যাচে তৃতীয় হারে এফ-গ্র“পের তলানিতে নেমে গেছে আর্সেন ওয়েঙ্গারের দল। শীর্ষে থাকা বার্য়ান ও অলিম্পিয়াকোসের পয়েন্ট নয়। এখন বাকি দু’ম্যাচ থেকে অলিম্পিয়াকোস এক পয়েন্ট পেলেই গ্র“পপর্ব থেকে বিদায় নিতে হবে আর্সেনালকে। সব মিলিয়ে চার ম্যাচ পর পাওয়া স্বস্তির জয়ে গ্র“পপর্ব থেকে বিদায়ের শংকা আপাতত কাটাতে পেরেছে চেলসি। তবে জয়টা সহজে ধরা দেয়নি ব্লুজদের হাতে। ৩৪ মিনিটে দ্রাগোভিচের আÍঘাতী গোলে এগিয়ে গেলেও একের পর এক সুযোগ নষ্ট করে বিপদে পড়তে বসেছিল চেলসি। আÍঘাতী গোলের দায় মিটিয়ে ৭৮ মিনিটে সেই দ্রাগোভিচই সমতায় ফেরান কিয়েভকে। আরেকটি অঘটনের শংকায় স্ট্যামফোর্ড ব্রিজ যখন স্তব্ধ তখনই ত্রাতার ভূমিকায় অবতীর্ণ হন উইলিয়ান। ৮৩ মিনিটে দুর্দান্ত এক ফ্রিকিকে জয়সূচক গোলটি করেন এই ব্রাজিলীয় তারকা। পরশু রাতে উইলিয়ানের জাতীয় দলের সতীর্থ নেইমার ছিলেন আরও উজ্জ্বল। ন্যুক্যাম্পে মুগ্ধতা ছড়িয়েছেন উরুগুয়ে ফরোয়ার্ড সুয়ারেজও। মেসির অনুপস্থিতিতে বার্সেলোনার সব দায়িত্ব যেন নিজেদের কাঁধে তুলে নিয়েছেন এই লাতিন যুগল। একটি পরিসংখ্যানেই ব্যাপারটি স্পষ্ট হয়ে যাবে। মেসি ইনজুরিতে পড়ার পর বার্সেলোনার সর্বশেষ ২১ গোলের ১৮টিই করেছেন নেইমার-সুয়ারেজ। বুধবার ৩০ মিনিটে নেইমারের পেনাল্টি গোলে এগিয়ে যায় বার্সা। ৬০ মিনিটে নেইমারের পাস থেকে দ্বিতীয় গোলটি করেন সুয়ারেজ। প্রতিদানে ৮৩ মিনিটে নেইমারকে তার ব্যক্তিগত দ্বিতীয় গোলটি বানিয়ে দেন সুয়ারেজ। এএফপি।
চ্যাম্পিয়ন্স লীগের ফল
বার্সেলোনা ৩ : ০ বাতে বরিসভ
রোমা ৩ : ২ বেয়ার লেভারকুসেন
বায়ার্ন মিউনিখ ৫ : ১ আর্সেনাল
অলিম্পিয়াকোস ২ : ১ ডায়নামো জাগরেব
পোর্তো ৩ : ১ ম্যাকাবি
চেলসি ২ : ১ ডায়নামো কিয়েভ
জেনিত ২ : ০ লিঁও
গেন্ট ১ : ০ ভ্যালেন্সিয়া

Post a Comment

 
Back To Top