Last Update

Tuesday, December 1, 2015

সেই পুরনো গল্প

অন্য দলগুলোর তুলনায় চিটাগাং ভাইকিংসের অধিকাংশ বিদেশী খেলোয়াড় আগেই চলে এসেছেন। প্রায় পুরো শক্তির দল নিয়েই প্রতি ম্যাচে মাঠে নামছে তারা। কিন্তু কোনো কিছুতেই লাভ হচ্ছে না। পাঁচ ম্যাচে মাত্র এক জয়। বিপিএলে সেরা চারে থাকার লড়াই থেকে প্রায় ছিটকে যাওয়ার উপক্রম। চিটাগাংয়ের শুরুটা প্রতি ম্যাচেই ভালো হয়েছে। শেষ পর্যন্ত তা ধরে রাখতে পারেনি তারা। কাল নিজেদের আঙিনায় বরিশাল বুলসের বিপক্ষে হেরেছে ৩৩ রানে। ম্যাচ শেষে চিটাগাং অধিনায়ক তামিম ইকবাল জানালেন, ‘আমাদের শুরুটা ছিল দারুণ। এর চেয়ে ভালো আশা করা যায় না, বিশেষ করে প্রথম ৬ ওভারে। এরপর সেই পুরনো গল্প। ক্যাচ মিস, রানআউটের সুযোগ নষ্ট করা। এসবই আমাদের ভুগিয়েছে।’
দলে অনেক বড় নাম থাকলেও কাজের সময় কেউই কিছু করতে পারছেন না। এনিয়ে সতীর্থের ওপর ক্ষোভ ঝাড়লেন তামিম, ‘আমি তো আর হাতে ধরে বুঝিয়ে দিতে পারব না! এ পর্যায়ে সবাইকে বুঝতে হবে যে কী করা উচিত। আমার দলে এ ব্যাপারটিই মূল সমস্যা। সবার বোঝা উচিত তাদের কার কী দায়িত্ব।’ আউট হওয়ার ধরন দেখে তামিম সতীর্থদের স্কুলপড়ুয়াদের সঙ্গে তুলনাও করলেন। এখন পর্যন্ত মোহাম্মদ আমির ছাড়া কাউকেই বোলার মনে হচ্ছে না তামিমের। বোলিং আক্রিমণ নিয়ে তিনি বলেন, ‘আমার দলে একজনই বোলার, যাকে দেখে মনে হয় উইকেট নিতে পারে, সে মোহাম্মদ আমির। এছাড়া আর কাউকে দেখছি না। শফিউল অবশ্য ভালো করছে। এছাড়া আর কেউ না। এ জায়গায় একটু ঘাটতি আছে আমাদের। নাম কিন্তু এটা বলে না। নাম যা বলে, তারা করছে অন্য কিছু।’ শেষ চারের আশা অবশ্য এখনই ছাড়ছেন না তামিম, ‘আমাদের জন্য কাজটা এখন অনেক কঠিন। পরের পাঁচ ম্যাচের অন্তত চারটা জিততে হবে।
ক্রিকেটে অসম্ভব কিছুই নয়। যে কোনো কিছুই হতে পারে। একটি ভালো ম্যাচ দরকার, এরপর সেই মোমেন্টটাকে বয়ে নিতে হবে।’ তামিম মনে করেছিলেন চট্টগ্রামে নিজেদের ফিরে পাবে চিটাগাং। বেশি দাম দিয়ে কেনা বিদেশী খেলোয়াড়দের মনে করিয়ে দিলেন তাদের কাছে দলের প্রত্যাশা অনেক বেশি। তামিম বলেন, ‘সবাই পেশাদার ক্রিকেটার। কামরান আকমল যেভাবে আউট হয়েছে সেটার কোনো জবাব নেই আমার কাছে। দিলশান যে মানের ব্যাটসম্যান সেভাবে ব্যাটিং করে গেলে আমরা ভালো অবস্থায় থাকতাম। এ দায়িত্বের জায়গাটা বুঝতে হবে। ওদের ওপর আমাদের নির্ভরতা অনেক বেশি।’ সাগরিকার উইকেট নিয়ে কারও কোনো অভিযোগ নেই। ভালো উইকেট বলেই মনে করছেন সবাই। কাল চিটগাংয়ের শেষ ১০ ওভারের বোলিং দেখে অনেকেই ফিক্সিংয়ের গন্ধ পেয়েছেন। সংবাদ সম্মেলনে এ প্রশ্নওটা উঠে এলো। তবে তা উড়িয়ে দিলেন তামিম, ‘সন্দেহজনক নয়, আমরা খারাপ খেলেছি। এজন্য এমন হয়েছে। এটা নিয়ে চিন্তাও করছি না। সবাই ভালো, ফেয়ার ক্রিকেট খেলছে।’

Post a Comment

 
Back To Top