Last Update

Tuesday, November 15, 2016

জলবায়ু সম্মেলনে যোগ দিতে মরক্কো গেলেন প্রধানমন্ত্রী

বিশ্ব জলবায়ু সম্মেলনে অংশ নিতে গতকাল সকালে
মরক্কোর উদ্দেশে হজরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক
বিমানবন্দর ছাড়েন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। বাসস
জাতিসংঘের জলবায়ু পরিবর্তন সম্পর্কিত ফ্রেমওয়ার্ক কনভেনশনের (ইউএনএফসিসি) ‘কনফারেন্স অব পার্টিস’-এর (কপ-২২) উচ্চপর্যায়ের দুটি পর্বে যোগ দিতে গতকাল সোমবার মরক্কো গেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। মারাক্কেশ শহরে ইউএনএফসিসির ২২তম বিশ্ব জলবায়ু শীর্ষ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হচ্ছে। বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইনসের একটি ভিভিআইপি ফ্লাইট প্রধানমন্ত্রী ও তাঁর সফরসঙ্গীদের নিয়ে সকালে মারাক্কেশের উদ্দেশে হজরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর ছাড়ে। ফ্লাইটটি মরক্কোর স্থানীয় সময় বিকেল ৪টা ৪৫ মিনিটে মেনারা বিমানবন্দরে অবতরণ করে। বিমানবন্দরে মরক্কোর জাতীয় শিক্ষা ও কারিগরি প্রশিক্ষণমন্ত্রী রচিড বেলমোখতার বিনাবদেল্লাহ, মরক্কোতে নিযুক্ত বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত সুলতানা লায়লা হোসেন ও বাংলাদেশ দূতাবাস ও মরক্কো সরকারের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা প্রধানমন্ত্রীকে অভ্যর্থনা জানান। এ সময় প্রধানমন্ত্রীকে গার্ড অব অনার প্রদান করা হয়। বিমানবন্দরে আনুষ্ঠানিকতা শেষে প্রধানমন্ত্রীকে মোটর শোভাযাত্রাসহকারে হোটেল লা মামৌনিয়াতে নেওয়া হয়। সফরকালে তিনি এ হোটেলে অবস্থান করবেন। পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ এইচ মাহমুদ আলী, পরিবেশ ও বনমন্ত্রী আনোয়ার হোসেন মঞ্জু, পানিসম্পদমন্ত্রী আনিসুল ইসলাম মাহমুদ এবং পরিবেশ ও বন উপমন্ত্রী আবদুল্লাহ আল ইসলাম জ্যাকব প্রধানমন্ত্রীর সফরসঙ্গী হয়েছেন।
প্রধানমন্ত্রী আজ সকালে কপ-২২-এর উদ্বোধনী অধিবেশনে যোগ দেবেন। বিকেলে কপ-২২, সিএমপি-১২ (১২তম কনফারেন্স অব দ্য পার্টিস সারভিং এজ দ্য মিটিং অব দ্য পার্টিস অব দ্য কিয়োটো প্রটোকল) এবং সিএমএ-১-এ (ফার্স্ট কনফারেন্স অব দ্য পার্টিস সারভিং এজ দ্য মিটিং অব দ্য পার্টিস অব দ্য প্যানিস অ্যাগ্রিমেন্ট) উচ্চপর্যায়ের বৈঠকে বক্তব্য দেবেন। বাব ইগলি কনফারেন্স ভেন্যুতে মরক্কোর বাদশাহ ষষ্ঠ মোহাম্মদ, জাতিসংঘের মহাসচিব বান কি মুন ও ইউনিসেফের এক্সিকিউটিভ সেক্রেটারি পেট্রিসিয়া এসপাইনোসা প্রধানমন্ত্রীকে অভ্যর্থনা জানাবেন। এদিন অন্যান্য রাষ্ট্র ও সরকারপ্রধানদের সঙ্গে শেখ হাসিনা মরক্কোর বাদশাহর দেওয়া এক ভোজসভায় যোগ দেবেন। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা তাঁর বক্তৃতায় জলবায়ু পরিবর্তনের চ্যালেঞ্জ মোকাবিলায় বাংলাদেশের অবস্থান তুলে ধরবেন এবং এই চ্যালেঞ্জ মোকাবিলায় জাতীয় ও সমন্বিত প্রয়াস এগিয়ে নিতে প্রচারাভিযান জোরদার করতে বিশ্বনেতাদের প্রতি আহ্বান জানাবেন বলে আশা করা হচ্ছে। আগামীকাল বুধবার প্রধানমন্ত্রীর দেশে ফেরার কথা রয়েছে।

Post a Comment

 
Back To Top