Last Update

Monday, June 5, 2017

উত্তরাঞ্চলের ৭০ আসনে বিএনপির ১৮৪ সম্ভাব্য প্রার্থীর তালিকা

ভিশন ২০৩০ দিয়ে বসে নেই বিএনপি। একটি সহায়ক সরকারের অধীনে একাদশ জাতীয় নির্বাচন আদায় করতে আন্দোলন-সংগ্রামের পাশাপাশি বিএনপির হাইকমান্ড ইতোমধ্যেই সারা দেশে বিএনপির সম্ভাব্য প্রার্থীর তালিকায় তৈরি করছেন। বিশেষ করে বিএনপির ঘাঁটি হিসেবে পরিচিত উত্তরাঞ্চলের দুই বিভাগ রাজশাহী ও রংপুরের ১৬ জেলার ৭০টি সংসদীয় আসনে দলীয় সঠিক ও যোগ্য প্রার্থী বাছাই করতে চায়। এ জন্য ১৮৪ জনের সম্ভাব্য প্রার্থীর তালিকা তৈরি করেছে বিএনপির হাই কমান্ড। বিএনপির কেন্দ্রীয় সূত্রে এ তথ্য পাওয়া গেছে। এ তালিকায় সংযোজন-বিয়োজন করা হবে বলে সূত্র জানায়। সূত্র মতে, একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন সামনে রেখে বিএনপি এরই মধ্যে রংপুর বিভাগের ৩৩টি আসনে ৭৬ জন নেতার তালিকা করেছে। তারা হচ্ছেন
রংপুর : রংপুর-১ গঙ্গাচড়া আসনে উপজেলা সহসভাপতি ওয়াহেদুজ্জান মাবু, মোকাররম হোসেন সুজন ও কামরুজ্জামান লিপটন; রংপুর-২ বদরগঞ্জ-তারাগঞ্জ আসনে বদরগঞ্জ উপজেলা সভাপতি পরিতোষ চক্রবর্তী, সাধারণ সম্পাদক সাখাওয়াত হোসেন শাহান, রংপুর মহানগর যুবদল সভাপতি মাহফুজ উন নবী ডন, পৌর সাধারণ স¤পাদক মো: কমল লোহানী; রংপুর-৩ সদর আসনে মহানগর সভাপতি মুক্তিযোদ্ধা মোজাফফর হোসেন, সিনিয়র সহসভাপতি সামসুজ্জামান সামু, সহসভাপতি ও জেলা আইনজীবী সমিতির সভাপতি অ্যাডভোকেট আবদুল কাইয়ুম, সাধারণ সম্পাদক শহিদুল ইসলাম মিজু, জেলা সেক্রেটারি রইচ আহমেদ; রংপুর-৪ কাউনিয়া-পীরগাছা আসনে কাউনিয়া উপজেলা সভাপতি এমদাদুল হক ভরসা, সাধারণ সম্পাদক আমিনুল ইসলাম রাঙ্গা, জেলা সদস্য কর্নেল (অব:) আবদুল বাতেন; রংপুর-৫ মিঠাপুকুর আসনে স্বেচ্ছাসেবক দলের উপজেলা সভাপতি এ কে এম রুহুল উল্লাহ জুয়েল, ছাত্রদল উপজেলা সাবেক সভাপতি খাজা নুর খাজা; রংপুর-৬ পীরগঞ্জ আসনে কেন্দ্রীয় সদস্য নুর মোহাম্মদ মণ্ডল, জেলা সভাপতি সম্পাদক সাইফুল ইসলাম; নীলফামারী-১ ডোমার-ডিমলা আসনে বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার ভাগ্নে ইঞ্জিনিয়ার শাহরিন ইসলাম তুহিন অথবা তার বাবা রফিকুল ইসলাম চৌধুরী; নীলফামারী-২ সদর আসনে জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক সামসুজ্জামান জামান, জেলা যুবদলের সাবেক আহবায়ক সোহেল পারভেজ, পৌরসভা শাখার সভাপতি জহুরুল ইসলাম; নীলফামারী-৩ জলঢাকা-আংশিক কিশোরীগঞ্জ আসনে জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক শামসুজ্জামান জামান, জলঢাকা উপজেলা বিএনপির সভাপতি ও পৌর মেয়র ফাহমিদ ফয়সাল কমেট চৌধুরী; নীলফামারী-৪ সৈয়দপুর-আংশিক কিশোরীগঞ্জ আসনে কণ্ঠশিল্পী ও জাসাস নেত্রী বেবী নাজনীন, নির্বাহী কমিটির সদস্য বিলকিস ইসলাম ও সৈয়দপুর বিএনপির সাধারণ সম্পাদক আমজাদ হোসেন সরকার; পঞ্চগড়-১ পঞ্চগড়-তেঁতুলিয়া-আটোয়ারী আসনে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ব্যারিস্টার জমির উদ্দিন সরকার।
পঞ্চগড় : পঞ্চগড় সদরের পৌর মেয়র মো: তৌহিদুল ইসলাম; পঞ্চগড়-২ বোদা ও দেবীগঞ্জ উপজেলা আসনে ২০ দলীয় জোটের শরিক দল জাগপার সভাপতি শফিউল আলম প্রধান একক প্রার্থী ছিলেন। কিন্তু তার মৃত্যুতে এ তালিকায় এখন স্থান পেয়েছেন যুবদল নেতা ফরহাদ হোসেন আজাদ, এ ছাড়া বিকল্প প্রার্থী হিসেবে পঞ্চগড় ১ ও ২ আসনে ব্যারিস্টার জমির উদ্দিন সরকারের ছেলে ব্যারিস্টার নওশাদ জমিরের নাম রয়েছে; ঠাকুরগাঁও-১ সদর আসনে বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর দলের একক প্রার্থী; ঠাকুরগাঁও-২ বালিয়াডাঙ্গী-হরিপুর আসনে বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর, নির্বাহী কমিটির সদস্য জেড এম মর্তুজা চৌধুরী তুলা, ড্যাবের সহসভাপতি ডা: আবদুস সালাম; ঠাকুরগাঁও-৩ পীরগঞ্জ-রানীশংকৈইল আসনে পীরগঞ্জ উপজেলা বিএনপির সভাপতি জাহিদুর রহমান জাহিদ, সহসভাপতি জামান চৌধুরী ও উপজেলা চেয়ারম্যান জিয়াউল ইসলাম জিয়া।
দিনাজপুর : দিনাজপুর-১ বীরগঞ্জ-কাহারোল আসনে বীরগঞ্জ উপজেলা সভাপতি মঞ্জুরুল ইসলাম, কাহারোল উপজেলা যুবদলের সাধারণ সম্পাদক মেহেদী হাসান সুমন; দিনাজপুর-২ বিরল-বোচাগঞ্জ আসনে স্থায়ী কমিটির সদস্য লে. জেনারেল মাহবুবুর রহমান একক প্রার্থী; দিনাজপুর-৩ (সদর) আসনে দিনাজপুর পৌর মেয়র জাহাঙ্গীর আলম ও খালেদা জিয়ার বড় বোনের ছেলে তাহাসিন আখতার ডন; দিনাজপুর-৪ খানসামা-চিরিরবন্দর আসনে বিএনপির নির্বাহী কমিটির সদস্য আখতারুজ্জামান মিয়া; দিনাজপুর-৫ ফুলবাড়ী-পার্বতীপুর আসনে বিএনপির নির্বাহী কমিটির সদস্য রেজওয়ানুল হক, ফুলবাড়ী উপজেলা সভাপতি অধ্যপক খুরশিদ আলম মতি; দিনাজপুর-৬ বিরামপুর-হাকিমপুর-নবাবগঞ্জ-ঘোড়াঘাট আসনে জেলা সাবেক সভাপতি অধ্যাপক লুৎফর রহমান মিন্টু।
লালমনিরহাট : লালমনিরহাট-১ পাটগ্রাম-হাতীবান্ধা আসনে হাতীবান্ধা উপজেলা বিএনপির সভাপতি মোশারফ হোসেন, জেলা সদস্য ব্যারিস্টার হাসান রাজিব প্রধান; লালমনিরহাট-২ আদিতমারী-কালীগঞ্জ আসনে কালীগঞ্জ উপজেলা সভাপতি সালেউদ্দিন মো: হেলাল, সাধারণ সম্পাদক জাহাঙ্গীর আলম; লালমনিরহাট-৩ (সদর) আসনে বিএনপির রংপুর বিভাগীয় সাংগঠনিক স¤পাদক আসাদুল হাবিব দুলু একক প্রার্থী।
কুড়িগ্রাম : কুড়িগ্রাম-১ নাগেশ্বরী-ভূরুঙ্গামারী আসনে জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক সাইফুর রহমান রানা, নাগেশ্বরী উপজেলা চেয়ারম্যান ও উপজেলা বিএনপির সভাপতি আবুল কাসেম সরকার; কুড়িগ্রাম-২ কুড়িগ্রাম সদর-ফুলবাড়ী আসনে বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবীর রিজভী, জেলা সহসভাপতি আবু বক্কর সিদ্দিক, শফিকুল ইসলাম লেবু, জেলা যুগ্ম সম্পাদক সোহেল হোসাইন কায়কোবাদ; কুড়িগ্রাম-৩ উলিপুর আসনে জেলা বিএনপির সহসভাপতি তাজভির উল ইসলাম, সাবেক ছাত্রনেতা আবদুল খালেক; কুড়িগ্রাম-৪ রৌমারী-রাজিবপুর-চিলমারী আসনে রাজিবপুর উপজেলা সভাপতি মোখলেছুর রহমান, রৌমারী উপজেলা সভাপতি আজিজার রহমান, সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান মিজানুর রহমান মিনু।
গাইবান্ধা : গাইবান্ধা-১ সুন্দরগঞ্জ আসনে সাবেক পিপি ও গাইবান্ধা জেলা বিএনপির সহসভাপতি অ্যাডভোকেট মো: জাহাঙ্গীর আলম জিন্নাহ; গাইবান্ধা-২ সদর আসনে জেলা বিএনপির সাবেক সভাপতি মো: আনিছুজ্জামান খান বাবু, জিয়া পরিষদ নেতা খন্দকার আহাদ আহম্মেদ; গাইবান্ধা-৩ সাদুল্যাপুর-পলাশবাড়ী আসনে জেলা বিএনপির সভাপতি ডা: মো: মইনুল হাসান সাদিক, সাবেক ছাত্রনেতা ড. মিজানুর রহমান মাসুম, বিএনপি কেন্দ্রীয় নেতা মো: রফিকুল ইসলাম রফিক; গাইবান্ধা-৪ গোবিন্দগঞ্জ আসনে উপজেলা বিএনপি সভাপতি মো: আবদুল মান্নান, উপজেলা বিএনপি সাধারণ সম্পাদক, উপজেলা চেয়ারম্যান মো: ফারুক কবীর আহম্মেদ, কেন্দ্রীয় নেতা অধ্যাপক আমিনুল ইসলাম; গাইবান্ধা-৫ ফুলছড়ি-সাঘাটা আসনে জেলা বিএনপি সদস্য মো: হাসান আলী, সাঘাটা উপজেলা বিএনপি সভাপতি মোহাম্মদ আলী ও শিল্পপতি নাজমুল ইসলাম নয়ন।
রাজশাহী বিভাগের আট জেলার ৩৭টি আসনের জন্য ১০৮ জনের একটি সম্ভাব্য তালিকা করেছেন বিএনপির হাইকমান্ড। সেই সূত্রে চলছে প্রয়োজনীয় তদবির-দেনদরবার। এ বিভাগের সম্ভাব্য প্রার্থীরা হলেনÑ
রাজশাহী : রাজশাহী-১ তানোর-গোদাগাড়ী সংসদীয় আসন থেকে চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা ও সাবেক মন্ত্রী ব্যারিস্টার আমিনুল হক, রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রদলের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি ও সাবেক যুগ্মসচিব গোলাম মোর্ত্তজা, মুণ্ডমালা পৌর বিএনপির সভাপতি মোজাম্মেল হকের ছেলে প্রবাসী অধ্যাপক শাহাদাৎ হোসেন শাহীন; রাজশাহী-২ সদর আসনে চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা মিজানুর রহমান মিনু, সম্ভাবনা রয়েছে বন ও পরিবেশবিষয়ক সম্পাদক এবং সিটি মেয়র মোসাদ্দেক হোসেন বুলবুল, সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবীর রিজভী, তথ্যপ্রযুক্তিবিষয়ক সহসম্পাদক ইঞ্জিনিয়ার খালেদ হোসেন পাহীন; রাজশাহী-৩ পবা-মোহনপুর আসনে চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা অ্যাডভোকেট কামরুল মনির, ত্রাণ ও পুনর্বাসনবিষয়ক সহসম্পাদক এবং নগর সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট শফিকুল হক মিলন, রাজশাহী বিভাগের সহসাংগঠনিক সম্পাদক সৈয়দ শাহীন শওকত, জেলা সভাপতি অ্যাডভোকেট তোফাজ্জল হোসেন তপু, যুবদল নেতা রায়হানুল আলম, শিল্পপতি ও বিএনপি নেতা লুৎফর রহমান; রাজশাহী-৪ বাগমারা আসনে সাবেক সংসদ সদস্য আবদুল গফুর ও আবু হেনা, উপজেলা বিএনপির সভাপতি মোখলেছুর রহমান, সাধারণ সম্পাদক ডি এম জিয়াউর রহমান; রাজশাহী-৫ পুঠিয়া-দুর্গাপুর আসনে কেন্দ্রীয় সদস্য ও সাবেক জেলা সভাপতি অ্যাডভোকেট নাদিম মোস্তফা, সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান অধ্যাপক নজরুল ইসলাম মণ্ডল এবং বিএনপির কেন্দ্রীয় সদস্য আবু বকর সিদ্দিক; রাজশাহী-৬ বাঘা-চারঘাট আসনে কেন্দ্রীয় সদস্য ও চারঘাট উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান আবু সাঈদ চাঁদ, কেন্দ্রীয় সদস্য রমেশ চন্দ্র ও দেবাশীষ রায় মধু, বাঘা উপজেলা বিএনপির সভাপতি নুরুজ্জামান, আজিজুর রহমান।
বগুড়া : বগুড়া-১ সারিয়াকান্দি-সোনাতলা আসনে জেলা বিএনপির কোষাধ্য শোকরানা, সাবেক সংসদ সদস্য কাজী রফিকুল ইসলাম, জেলা বিএনপির সহসভাপতি সোনাতলা উপজেলা চেয়ারম্যান আহসান তৈয়ব জাকির; বগুড়া-২ শিবগঞ্জ আসনে সাবেক সংসদ সদস্য অ্যাডভোকেট হাফিজুর রহমান, জেলা বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক শিবগঞ্জ উপজেলার সাবেক চেয়ারম্যান মীর শাহে আলম; বগুড়া-৩ আদমদীঘি-দুপচাঁচিয়া আসনে সাবেক এমপি আব্দুল মোমিন তালুকদার খোকা, থানা সদস্য সোশ্যাল ইসলামী ব্যাংক লিমিটেডের চেয়ারম্যান সুলতান মাহমুদ চৌধুরী, জেলা বিএনপির সহসভাপতি ফজলুল বারী তালুকদার বেলাল; বগুড়া-৪ কাহালু-নন্দীগ্রাম আসনে সাবেক সংসদ সদস্য প্রকৌশলী জেড আই মোস্তফা আলী মুকুল, জেলা বিএনপির সহসভাপতি অ্যাডভোকেট রাফী পান্না, জেলা বিএনপির কার্যনির্বাহী কমিটির সদস্য মোশারফ হোসেন, সাবেক সংসদ সদস্য ডা: জিয়াউল হক মোল্লা; বগুড়া-৫ শেরপুর-ধুনট আসনে কেন্দ্রীয় সদস্য ও সাবেক শেরপুর উপজেলা চেয়ারম্যান কে এম মাহবুবার রহমান হারেছ, জেলা বিএনপির উপদেষ্টা জানে আলম খোকা, শেরপুর পৌসভা চেয়ারম্যান স্বাধীন কুমার কুণ্ডু, সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী ব্যারিস্টার আনোয়ারুল ইসলাম শাহিন, সাবেক এমপি গোলাম মোহাম্মাদ সিরাজ; বগুড়া-৬ সদর আসনে বিএনপির চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া একক প্রার্থী। বগুড়া-৭ গাবতলী ও শাজাহানপুর আসনেও খালেদা জিয়া একক প্রার্থী।
সিরাজগঞ্জ : সিরাজগঞ্জ-১ কাজীপুর আসনে কণ্ঠশিল্পী কনক চাপা, সিরাজগঞ্জ শহর বিএনপির সভাপতি নাজমুল ইসলাম তালুকদার রানা, কাজীপুর উপজেলা বিএনপির সভাপতি সেলিম রেজা, কাজীপুর পৌর বিএনপির সভাপতি ও সাবেক মেয়র আব্দুস সালাম, সিরাজগঞ্জ জেলা বিএনপির সদস্য টি এম তাজুল ইসলাম তুষার; সিরাজগঞ্জ-২ সদর-কামারখন্দ আসনে বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান ইকবাল হাসান মাহমুদ টুকু, বিএনপির তাঁতীবিষয়ক সম্পাদক হুমায়ুন ইসলাম খান, সাবেক সংসদ সদস্য ও সিরাজগঞ্জ জেলা বিএনপির ভারপ্রাপ্ত সভাপতি রুমানা মাহমুদ, সিরাজগঞ্জ জেলা বিএনপির সাবেক যুগ্ম-আহ্বায়ক মির্জা মোস্তফা জামান, বিএনপির জাতীয় নির্বাহী কমিটির সদস্য মেজর (অব:) মোহাম্মদ হানিফ; সিরাজগঞ্জ-৩ রায়গঞ্জ-তাড়াশ-সলঙ্গা আসনে চারবার নির্বাচিত সাবেক সংসদ সদস্য আব্দুল মান্নান তালুকদার, গ্রাম সরকারবিষয়ক সম্পাদক সাইফুল ইসলাম শিশির, রায়গঞ্জ উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ও রায়গঞ্জ উপজেলা যুবদল সভাপতি ভিপি আয়নুল হক; সিরাজগঞ্জ-৪ উল্লাপাড়া আসনে উল্লাপাড়া উপজেলা বিএনপির সভাপতি ও সাবেক সংসদ সদস্য এম আকবর আলী, উল্লাপাড়া উপজেলা বিএনপির সাবেক আহ্বায়ক কাজী কামাল, বিএনপির জাতীয় নির্বাহী কমিটির সদস্য অ্যাডভোকেট সিমকী ইমাম খান, সাবেক সংসদ সদস্য শামসুল ইসলাম খান; সিরাজগঞ্জ-৫ বেলকুচি-চৌহালী আসনে সাবেক সংসদ সদস্য মেজর (অব:) মঞ্জুর কাদের, বিএনপির তাঁতীবিষয়ক সম্পাদক হুমায়ুন ইসলাম খান, তাঁতীদল কেন্দ্রীয় কমিটির উপদেষ্টা গোলাম মওলা খান বাবলু, বিএনপির সহ-প্রচার সম্পাদক আমিরুল ইসলাম খান আলীম, চৌহালী উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান মেজর (অব:) আব্দুল্লাহ আল মামুন; সিরাজগঞ্জ-৬ শাহজাদপুর আসনে সাবেক সংসদ সদস্য কামরুদ্দিন এহিয়া খান মজলিস, সাবেক উপ-প্রধানমন্ত্রী মরহুম ডা: এম এ মতিনের ছেলে ডা: এম এ মুহিত, শাহজাদপুর উপজেলা বিএনপির সভাপতি গ্যাদন মাহমুদ, কেন্দ্রীয় স্বেচ্ছাসেবক দলের সহসভাপতি গোলাম সরোয়ার, কেন্দ্রীয় তাঁতীদলের সম্পাদক মনির হোসেন।
নওগাঁ : নওগাঁ-১ পোরশা-নিয়ামতপুর-সাপাহার আসনে সাবেক এমপি ডা: সালেক চৌধূরী, নওগাঁ-২ পতœীতলা-ধামইরহাট আসনে জেলা বিএনপির নেতা সাবেক এমপি সামসুজোহা খান, নওগাঁ-৩ মহাদেবপুর-বদলগাছী আসনে মহাদেবপুর উপজেলা বিএনপির সভাপতি ও সাবেক ডেপুটি স্পিকার অ্যাডভোকেট আখতার হামিদ খান সিদ্দিকী, বদলগাছী উপজেলা বিএনপির সভাপতি ফজলে হুদা বাবুল; নওগাঁ-৪ (মান্দা) আসনে সাবেক এমপি সামছুল হক প্রামাণিক, নওগাঁ-৫ সদর আসনে জেলা বিএনপির সভাপতি ও পৌরমেয়র নাজমুল হক সনি, জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক জাহিদুল ইসলাম ধলু, জেলা বিএনপির সহসভাপতি ও সদর উপজেলার চেয়ারম্যান আবু বক্কর সিদ্দিক নান্নু; নওগাঁ-৬ আত্রাই-রানীনগর আসনে আত্রাই উপজেলা বিএনপির সভাপতি আনোয়ার হোসেন বুলু একক প্রার্থী।
পাবনা : পাবনা-১ সাঁথিয়া-বেড়া আসনে কল্যাণ পার্টির মহাসচিব এম এম আমিনুর রহমান, সাঁথিয়া থানা সভাপতি মাহমুদ মোর্শেদ ; পাবনা-২ সুজানগর-বেড়া আসনে সাবেক এমপি অ্যাডভোকেট এ কে এম সেলিম রেজা হাবিব, কৃষিবিদ হাসান জাপির তুহিন; পাবনা-৩ চাটমোহর-ভাঙুরা-ফরিদপুর আসনে চাটমহর উপজেলা বিএনপির সভাপতি সাবেক এমপি কে এম আনোয়ারুল ইসলাম, পাবনা-৪ ঈশ্বরদী-আটঘরিয়া আসনে শিল্পপতি আকরাম আলী খান সঞ্জু, চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা হাবিবুর রহমান হাবিব; পাবনা-৫ সদর আসনে বিএনপি চেয়ারপাসনের বিশেষ সহকারী অ্যাডভোকেট শামসুর রহমান শিমুল বিশ্বাস একক প্রার্থী।
জয়পুরহাট : জয়পুরহাট-১ সদর, পাঁচবিবি আসনে সাবেক সংসদ সদস্য ও জেলা বিএনপির সভাপতি মো: মোজাহার আলী প্রধান, জেলা বিএনপির সহসভাপতি মমতাজ উদ্দিন, সদর উপজেলার চেয়ারম্যান ও জেলা বিএনপির সহসভাপতি ফজলুর রহমান, কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটির সদস্য ফয়সল আলীম; জয়পুরহাট-২ আক্কেলপুর-কালাই-তেলাল আসনে সাবেক সংসদ সদস্য ইঞ্জিনিয়ার গোলাম মোস্তফা, সাবেক ঢাকা বিভাগীয় কমিশনার আব্দুল বারিক, জেলা বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক ও জাসাসের কেন্দ্রীয় কমিটির সহসভাপতি লায়ন সিরাজুল ইসলাম বিদ্যুৎ, আক্কেলপুর থানা বিএনপির সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক আরিফ আহম্মেদ রানা, তেলাল উপজেলার চেয়ারম্যান ও জেলা বিএনপির সহসভাপতি রওনুকুল ইসলাম টিপু;
নাটোর : নাটোর-১ আসনে সাবেক প্রতিমন্ত্রী ফজলুর রহমান পটলের স্ত্রী কামরুন নাহার পাপ্পু, কেন্দ্রীয় সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক তাইফুল ইসলাম টিপু; নাটোর-২ আসনে সাবেক উপমন্ত্রী রুহুল কুদ্দুস তালুকদার দুলু, ব্যবসায়ী আবুল কাসেম, সাবেক উপমন্ত্রী রুহুল কুদ্দুস তালুকদার দুলুর স্ত্রী ছাবিনা ইয়াসমিন ছবি; নাটোর-৩ আসনে সাবেক সংসদ সদস্য মোজাম্মেল হক, লালপুর উপজেলা বিএনপির সভাপতি আয়নাল হক তালুকদার; নাটোর-৪ আসনে সাবেক সংসদ সদস্য কাজী গোলাম মোর্শেদ, সিংড়া পৌরসভার সাবেক মেয়র ও পৌর বিএনপির সভাপতি শামিম আল রাজি।
চাঁপাইনবাবগঞ্জ : চাঁপাইনবাবগঞ্জ-১ শিবগঞ্জ আসনে বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা ও সাবেক সংসদ সদস্য অধ্যাপক শাহজাহান মিয়া; চাঁপাইনবাবগঞ্জ-২ ভোলাহাট, গোমস্তাপুর ও নাচোল উপজেলা আসনে যুবদলের কেন্দ্রীয় কমিটির কোষাধ্য আমিনুল ইসলাম, জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক সৈয়দা আশিফা আশরাফি পাপিয়া; চাঁপাইনবাবগঞ্জ-৩ সদর আসনে বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব ও সাবেক সংসদ সদস্য হারুন অর রশিদ, সাবেক যুবদল নেতা ও চাঁপাইনবাবগঞ্জ চেম্বারের সাবেক সভাপতি আব্দুল ওয়াহেদ।
সম্ভাব্য প্রার্থী তালিকার ব্যাপারে বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক আসাদুল হাবিব দুলু জানান, বিএনপি একটি গণতান্ত্রিক দল। গণতন্ত্র প্রাতিষ্ঠানিক রূপ পায় নির্বাচনের মাধ্যমে। সেজন্যই নির্বাচনকালীন সহায়ক সরকার প্রতিষ্ঠার দাবিতে আন্দোলন সংগ্রামের পাশাপাশি সঠিক ও যোগ্য প্রার্থী নির্বাচনের জন্য সম্ভাব্য প্রার্থী তালিকা প্রস্তুত ছাড়াও যাছাই-বাছাইয়ের কাজ চলছে। তিনি বলেন, এবার আন্দোলনের মাধ্যমে সহায়ক সরকারের অধীনে নির্বাচনও হবে এবং সেই নির্বাচনে বিএনপি অংশ নিয়ে জনগণের ম্যান্ডেট পাবে ইনশাল্লাহ।

Post a Comment

 
Back To Top